What is the success of organ transplantation to save life
//

জীবন বাঁচাতে অঙ্গ প্রতিস্থাপনের সফলতা কতটুকু?

331 বার পড়া হয়েছে

আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের একটি অন্যতম অবদান হচ্ছে অঙ্গ প্রতিস্থাপন (organ transplant)। কিন্তু অন্যতম একটি দুঃখের বিষয় হচ্ছে অঙ্গ দাতাদের চেয়ে প্রকৃতপক্ষে অঙ্গগ্রহণকারী ব্যক্তির সংখ্যা অনেক বেশি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী প্রতিদিন প্রায় ২১ জন মানুষ একটি অঙ্গের অপেক্ষায় মৃত্যুবরণ করে এবং প্রায় ১ লক্ষেরও বেশি মানুষ জীবন রক্ষাকারী অঙ্গ প্রতিস্থাপনের জন্য অপেক্ষা করে। 

অঙ্গ প্রতিস্থাপনের ক্ষেত্রে চিকিৎসা এবং ধর্মীয় নীতি, সমাজের আচার-আচরণ, নৈতিকতা ও বিশ্বাস জড়িত।  কিন্তু কিছু অনৈতিক বিষয় যেমন অঙ্গ পাচার, অঙ্গের জন্য অর্থ প্রদান, দাতা এবং অন্যদের সম্ভাব্য ক্ষতি, অঙ্গের ঘাটতি ইত্যাদি কারণে অঙ্গ প্রতিস্থাপন একটি চ্যালেঞ্জ হিসেবে ধরা দিয়েছে ।

অঙ্গ প্রতিস্থাপন কি এবং কেন?

প্রতিস্থাপিত অঙ্গের মধ্যে রয়েছে লিভার, কিডনি, অগ্নাশয়, অন্ত্র, ফুসফু্‌স, হৃদপিণ্ড, হৃদপিন্ডের ভাল্ব, চামড়া, হাড়, লিগামেন্ট, কর্নিয়া, অস্থিমজ্জা,কানেকটিভ টিস্যু। এছাড়া ভাস্কুলারাইডজ কম্পোজিট এর মধ্যে রয়েছে চামড়া, হাড়, রক্তনালী, জরায়ু (Uterus), স্নায়ু্‌, পেশী এবং সংযোগকারী টিস্যু।

সাধারণত অঙ্গ প্রতিস্থাপন বলতে বোঝায়, অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে এক ব্যক্তির কোন অঙ্গ বা টিস্যু অপসারণ করে অন্য এক ব্যক্তির মধ্যে স্থাপন করার প্রক্রিয়া। কোন রোগ বা আঘাত দ্বারা যদি কোন ব্যক্তির পুরোপুরি ভাবে কোনো অঙ্গ নষ্ট হয়ে যায় বা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তখন অঙ্গ প্রতিস্থাপন এর প্রয়োজন হয়। অঙ্গ প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে ব্যক্তির জীবনকাল বাড়ানো সম্ভব হয়েছে। 

অঙ্গ প্রতিস্থাপন এর প্রকারভেদ

  • অটোগ্রাফ্ট (autograft)

এটি সাধারণত একই ব্যক্তির শরীরে করা হয়ে থাকে। কখনো কখনো এটি উদ্বৃত্ত টিস্যু দিয়ে করা হয় যে টিস্যু পুনরুৎপাদন করতে পারে। যেমন ত্বকের গ্রাফ্ট, স্টেম সেল অটোগ্রাফ্ট ইত্যাদি।

  • অ্যালোগ্রাফ্ট এবং অ্যালোট্রান্সপ্লান্টেশন (allograft & allotransplantation)

অ্যালোগ্রাফ্ট হল একই প্রজাতির দুটি জিনগতভাবে অভিন্ন সদস্যের মধ্যে অঙ্গ বা টিস্যুর প্রতিস্থাপন । বেশিরভাগ মানুষের টিস্যু এবং অঙ্গ প্রতিস্থাপনই হল অ্যালোগ্রাফ্ট। অঙ্গ এবং প্রাপকের মধ্যে জেনেটিক পার্থক্যের কারণে, প্রাপকের প্রতিরোধ ব্যবস্থা অঙ্গটিকে বিদেশী হিসাবে চিহ্নিত করবে এবং এটিকে ধ্বংস করার চেষ্টা করবে, যার ফলে প্রতিস্থাপন প্রত্যাখ্যান হবে। 

  • আইসোগ্রাফ্ট (isograft)

এটি হলো অ্যালোগ্রাফ্টগুলির একটি উপসেট, যেখানে অঙ্গ বা টিস্যুগুলি দাতা থেকে জিনগতভাবে অভিন্ন প্রাপকের কাছে প্রতিস্থাপন করা হয় । আইসোগ্রাফ্টগুলি অন্যান্য ধরণের ট্রান্সপ্লান্ট থেকে আলাদা। কারণ এগুলো অ্যালোগ্রাফ্টগুলোর সাথে শারীরবৃত্তীয়ভাবে অভিন্ন হলেও, তারা ইমিউন সিস্টেমকে ট্রিগার করে না ।

  • জেনোগ্রাফ্ট এবং জেনোট্রান্সপ্লান্টেশন (xenograft & xenotransplantation)

এটি মূলত এক প্রজাতি থেকে অন্য প্রজাতিতে অঙ্গ বা টিস্যুর প্রতিস্থাপনকে বোঝায়। একটি উদাহরণ হল – পোরসিন (Porcine) হার্ট ভালভ ট্রান্সপ্ল্যান্ট, যা বেশ সাধারণ এবং সফল। কিন্তু জেনোট্রান্সপ্লান্ট একটি বিপজ্জনক প্রতিস্থাপন। কারণ এতে অকার্যকর সামঞ্জস্য, প্রত্যাখ্যান এবং টিস্যুতে বাহিত রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়। 

অঙ্গ প্রতিস্থাপনের ইতিহাস ও বর্তমান  প্রেক্ষাপট

  • সর্বপ্রথম ১৯৫৪ সালে সফলভাবে মানুষের মধ্যে কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়। রোনাল্ডো লি হেরিক নামের এক ব্যক্তি তার যমজ ভাইকে একটি কিডনি প্রদান করেন এবং এই অস্ত্রোপচারটি পরিচালনা করেন ডাঃ জোসেফ মারে। যার ফলে তিনি পরবর্তীতে  মেডিসিন ও শরীরতত্ত্বে নোবেল পুরস্কার পান। ১৯৬০ থেকে ১৯৮০ সালের মধ্যে লিভার,  অগ্নাশয়, ফুসফু্‌স, হৃদপিণ্ড এবং অন্ত্র প্রতিস্থাপন করা শুরু হয়। বিশ্বের প্রথম হৃদপিণ্ড  প্রতিস্থাপন করা রোগী  প্রায় ১৮ দিন বেঁচে ছিলেন।
  • এরপর থেকে ধীরে ধীরে অঙ্গ প্রতিস্থাপনের প্রক্রিয়াটি আরো অগ্রগতি লাভ করে এবং ১৯৯৮ সালে নতুন ইমিউনোসাপ্রেসেন্ট ট্যাক্রোলিমাস এবং মাইকোফেনোলেট মোফেটিল অঙ্গ প্রতিস্থাপন গ্রহীতার সহনশীলতা উন্নত করে, বিশেষ করে একাধিক টিস্যু নিয়ে গঠিত ভাস্কুলারাইজড কম্পোজিট গ্রাফ্ট। 
  • একই বছর, ফ্রান্সের ডাঃ জিন-মিশেল ডুবার্নার্ড, একজন রোগীর হাতের মাঝামাঝি বিচ্ছেদ সহ প্রথম সফল হাত প্রতিস্থাপন করেন। ডুবার্নার্ড পরে ২০০০ সালে প্রথম ডাবল হ্যান্ড ট্রান্সপ্লান্ট করেন। ২০০৫ সালে ডাঃ বার্নার্ড এবং ডুবার্নার্ড ইসাবেল একটি আংশিক মুখ প্রতিস্থাপন করেন, যিনি ৭ মাস আগে একটি বিকৃত কুকুরের আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন এবং অনুভব করেছিলেন যে তিনি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারবেন না।
  • হ্যারল্ড নামে এক ব্যক্তি হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপনের পর প্রায় ৩৫বছর পর্যন্ত বেঁচে ছিলেন এবং তিনিই পৃথিবীতে হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপন করা সর্বোচ্চ সংখ্যক বছর বেঁচে থাকা ব্যক্তি।
  • এছাড়া বর্তমানে চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নতি এবং রিকম্বিনেন্ট টেকনোলজির মাধ্যমে সর্বপ্রথম পৃথিবীতে মানুষের মধ্যে শুকরের হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপন করা সম্ভব হয়েছে । সম্প্রতি বালটিমরে ইউনিভার্সিটি অফ ম্যারিল্যান্ড স্কুল এন্ড মেডিসিনের একদল চিকিৎসক ৫৭ বছর বয়সের একজন পুরুষের মধ্যে জেনেটিক্যালি মডিফাইড শুকুরের হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপন করেছেন। লোকটির এরিদমিয়া (arrhythmia) ছিল এবং তিনি হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপন তালিকা বা কৃত্রিম হৃদপিণ্ড পাম্পের জন্য কার্যকর প্রার্থী ছিলেন না।  এক্ষেত্রে শুকরের হৃদপিন্ডের দশটি জেনেটিক পরিবর্তন করা হয়েছে, যার মধ্যে শুকরের চারটি জিন অপসারণ করে (knock out) সেখানে ৬টি মানুষের জিন যুক্ত করা হয়েছে। এটি ছিল মূলত এক ধরনের জেনো ট্রানস্প্লান্টেশন প্রক্রিয়া। 

অঙ্গ প্রতিস্থাপনের  ক্ষেত্রে মাপকাঠি সমূহ

সারাবিশ্বে বিভিন্ন ধরনের অঙ্গ সংগ্রহকারী সংস্থা রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো ইউ এন ও এস (UNOS – United Network for Organ Sharing)। তাদের কাজ হল কোন অঙ্গ দান কারী ব্যক্তি মারা গেলে বা ব্রেইন ডেথ হলে তখন  তার মেডিকেল এবং জেনেটিক  হিস্টরি, বয়সের উপর ভিত্তি করে সে দাতা হিসেবে উপযুক্ত কিনা তা নির্বাচন করা। সব বয়সের মানুষই দাতা হিসেবে বিবেচিত হতে পারে।  অঙ্গ প্রতিস্থাপনে যে বিষয়গুলো সাধারণত দেখা হয় তার মধ্যে রয়েছে-

  • রক্তের  গ্রুপ
  • টিস্যুর ধরন 
  • অঙ্গের আকার 
  • রোগীর অসুস্থতার ধরন
  • দাতা এবং প্রাপক এর মধ্যে ভৌগোলিক দূরত্ব

লিভিং  অর্গান  ডোনেশন বা জীবিত অঙ্গ  দান প্রক্রিয়া

যখন কোন সুস্থ এবং জীবিত ব্যক্তির শরীরের কোন অঙ্গ বা টিস্যু অপসারণ করে অন্য কোন ব্যক্তিকে প্রতিস্থাপন করা হয়, সেটাই হচ্ছে লিভিং অর্গান ডোনেশন (Living Organ Donation Process) প্রক্রিয়া। এক্ষেত্রে অস্ত্রোপচারের পর অঙ্গ দাতা এবং অঙ্গ গ্রহীতা দুজনই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে।

অঙ্গ প্রতিস্থাপন এবং এর পরবর্তী ব্যবস্থাপনা সমূহ

সাধারণত অঙ্গ প্রতিস্থাপনের পর অঙ্গ গ্রহীতা ব্যক্তির শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রতিস্থাপিত অঙ্গটিকে ফরেন অবজেক্ট হিসেবে ধরে তাকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এবং বাতিল করে দিতে পারে। এক্ষেত্রে ট্রান্সপ্লান্টেশনের বা প্রতিস্থাপনের পরে ইমিউনোসাপ্রেসেন্ট (immunosuppressant) দেয়া হয়, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে অঙ্গটির বিরুদ্ধে কাজ করার জন্য প্রতিরোধ করে। কিন্তু এক্ষেত্রে সঠিক  ডোজ নির্ণয় করা খুবই জরুরী। 

বর্তমানে ব্যবহৃত ইমিউনোসাপ্রেসেন্টের মধ্যে রয়েছে ট্যাক্রোলিমাস (tacrolimus), সাইক্লোস্পোরিন (cyclosporine), মাইকোফেনোলেট (mycophenolate), মোফেটিল (mofetil), অ্যাজাথিওপ্রিন (azathioprine), এভারোলিমাস(everolimus), সিরোলিমাস (sirolimus) এবং স্টেরয়েড (glucocorticoids)। কিন্তু শিশুদের ক্ষেত্রে ক্লিনিক্যাল টক্সিসিটি বা ক্ষতিকর প্রভাব, বৃদ্ধি এবং বিকাশ এর উপর নির্ভর করে ডোজ মডিফাই করা হয়।

অঙ্গ প্রতিস্থাপন ও ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা

অঙ্গ প্রতিস্থাপন কে বর্তমানে একটি অলৌকিক ঘটনাই বলা চলে । এটি যেমন জীবন রক্ষা করে ঠিক তেমনি মানুষকে তার স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে। 

  • বর্তমানে চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নতি এবং জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং টেকনোলজির কারণে আশা করা যায় যে,  অদূর ভবিষ্যতে  ইমিউনোসাপ্রেসেন্ট ঔষধের ব্যবহার ছাড়াই এবং অঙ্গ পুনর্জন্মের  জন্য স্টেম সেল (stem cell) ব্যবহার করে খুব সহজেই মানুষের মুখ, হাত (ভাস্কুলারাইড  কম্পোজিট গ্রাফ্টগুলো) খুব সহজেই প্রতিস্থাপন করা যাবে।
  • জেনো ট্রান্সপ্লান্টেশনের অগ্রগতির মাধ্যমে দাতা অঙ্গগুলোর জেনেটিক মডিফাই করে সেগুলোকে মানুষের অঙ্গের সাথে আরো বেশি সামঞ্জস্যপূর্ণ করে খুব সহজেই কিডনি,অগ্নাশয়, হৃদপিন্ড ও ফুসফুস এবং লিভার সহ বিভিন্ন অঙ্গ প্রতিস্থাপন করা সম্ভব হবে।
  • ফার্মাকোজেনোমিক্স (pharmacogenomics) এর বিকাশের মাধ্যমে সহজেই সঠিক প্রতিস্থাপন ওষুধ নির্বাচন ও এর ডোজ নির্ধারণ করা যাবে। একই সাথে বিভিন্ন রোগের সাথে জড়িত জিন সনাক্ত করে এর জন্য প্রয়োজনীয় থেরাপিউটিক ওষুধ গুলো ব্যবহার করা যাবে।

আর এইভাবেই অঙ্গ প্রতিস্থাপনের ক্ষেত্রে অগ্রগতির চূড়ান্ত দ্বারপ্রান্তে পৌঁছানো সম্ভব হবে আশা করা যায়।

References:

  • Beyar R. Challenges in organ transplantation. Rambam Maimonides medical journal. 2011 Apr;2(2).
  • Hamilton D. A history of organ transplantation: ancient legends to modern practice. University of Pittsburgh Pre; 2012.
  • Tönshoff B. Immunosuppressants in organ transplantation. InPediatric Pharmacotherapy 2019 (pp. 441-469). Springer, Cham.
  • Bernat, James L.; Capron, Alexander M.; Bleck, Thomas P.; Blosser, Sandralee; Bratton, Susan L.; Childress, James F.; DeVita, Michael A.; Fulda, Gerard J.; Gries, Cynthia J. (March 2010). “The circulatory–respiratory determination of death in organ donation*”. Critical Care Medicine. 38 (3): 963–70.
  • Organ Donation and Transplantation: How it works;  12 Feb 2022 Available from -https://my.clevelandclinic.org/health/articles/11750-organ-donation-and-transplantation
  • Future direction; AMERICAN SOCIETY OF TRANSPLANTATION. ALL RIGHTS RESERVED, 13 Feb 2022 Available from – https://www.myast.org/public-policy/key-position-statements/future-directions
  • Pig heart transplant saves heart disease patient; MedicalNewsToday, 14 Feb 2022 Available from – https://www.medicalnewstoday.com/articles/first-successful-pig-to-human-heart-transplant-may-offer-new-options-for-patie

আমি আনিসা ইবনাত। বর্তমানে পড়াশোনা করছি নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসী (প্রফেশনাল) বিভাগের ৫ম বর্ষে। শুরু থেকেই বিজ্ঞান ও স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন জিনিস জানা এবং লিখালিখির বেশ আগ্রহ ছিল। আর এইরকম অনলাইন প্লাটফর্মগুলোর মাধ্যমেই সে ইচ্ছা পরিপূর্ণতা পেয়েছে। একজন ঔষধ বিষয়ক শিক্ষার্থী হিসেবে নিজের ক্ষুদ্র জ্ঞান টুকুকে সবার মাঝে ছড়িয়ে সচেতনতা তৈরি এবং গবেষণার মাধ্যমে মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চাই।

একটি প্রত্যুত্তর করুন

Your email address will not be published.